কার্যক্রম

বর্তমানে এসিস্ট বাংলাদেশ চারটি মূল বিষয় নিয়ে কাজ করছে:

  • পোশাক খাতের বিভিন্ন কারখানা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের নারীশ্রমিক ও মেয়ে শিক্ষার্থীদের হাইজিন ম্যানেজমেন্ট নিয়ে কাজ।কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সুবিধাভোগীদের মধ্যে স্বল্পমূল্যে স্বাস্থ্যসম্মত নেপকিন বিতরণ করা হচ্ছে।
  • এখনো দেশের অধিকাংশ স্থানে বয়স্ক নাগরিকরা, যাদের আমরা সিনিয়র সিটিজেন হিসেবে আখ্যায়িত করি, তারা নির্যাতনের শিকার হন। এর মধ্যে সিংহভাগ ক্ষেত্রে পারিবারিকভাবে নির্যাতনের শিকার হন তারা। সামাজিক ও অর্থনৈতিক কারণও রয়েছে। এসিস্ট বাংলাদেশ এ ধরনের সিনিয়র সিটিজেনদের সহায়তা ও পুর্নবাসনের ব্যবস্থা করে।
  • নদীমাতৃক বাংলাদেশে নদীর পাড়ের বাসিন্দাদের কাছে এক আতঙ্কের নাম ভাঙন৷ অনেকের জীবন দুর্বিষহ হয়েছে এই ভাঙনে৷ কেউ হারিয়েছেন পরিবার, কেউ জীবিকা৷ এর মধ্যে বেশির ভাগ সহায় সম্বল হারানো মানুষগুলো রাজধানীতে পাড়ি জমায়। রাজধানীতে ভাসমান জীবন-যাপন করা এসব পরিবারের সন্তানদের শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ খুব সীমিত। ‘এসিস্ট বাংলাদেশ’ কর্তৃক পরিচালিত ‘মানবিক স্কুল’ তাদের শিক্ষার পাশাপাশি কর্মমুখী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে। ‘মানবিক স্কুল’ সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়ন ও স্বদিচ্ছায় পরিচালিত একটি কর্মমুখী শিক্ষার প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান।
  • প্রকাশনা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আঞ্চলিক মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ও দেশের বিভিন্ন স্তরের প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের জীবনী সংগ্রহ এবং লিপিবদ্ধ করে এসিস্ট বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *