‘রণাঙ্গণে ফুটবল’

‘২৪ জুলাই’ তারিখকে জাতীয় ক্রীড়া দিবস ঘোষনার দাবিতে স্মরণীকা প্রকাশ।
সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে: ‘জাতীয় ক্রীড়া দিবস বাস্তবায়ন ও উদযাপন পরিষদ’।
প্রকাশ: ২০১৪ সাল
প্রকাশক: এসিস্ট বাংলাদেশ।

‘রণাঙ্গণে ফুটবল’ স্মরণীকার মোড়ক

২৪ জুলাই বাংলাদেরে ইতিহাসের একটি অনন্য দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা জীবন বাজি রেখে ভারতের নদীয়া জেলায় প্রথম ফুটবল খেলায় অংশ নিয়েছিল। এদিন পরাধীন হয়েও বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়েছিল এবং জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া হয়েছিল। এটি পৃথিবীর ইতিহাসে অদ্বিতীয় ঘটনা।

যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে দলটি ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে ১৬টি খেলায় অংশ নেয়। এসব খেলায় অংশ নিয়ে ফান্ড সংগ্রহ করে দলটি তখনকার সময়ে ৫ লক্ষ রুপি তুলে দেয়া হয়েছিল মুক্তিযুদ্ধের ফান্ডে। এর সাথে অন্য ফান্ডের টাকা মিলিয়ে প্রথমবারের মতো মুক্তিযুদ্ধের জন্য অস্ত্র কেনা হয়।

স্বাধীন বাংলা ফুটবল দল হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের প্রতিচ্ছবি। আমরা এই দলটির অনন্য কৃতিত্ব ও অর্জনকে স্মরণীয় করে রাখতে ২৪ জুলাই তারিখকে জাতীয় ক্রীড়া দিবস ঘোষনার জোর দাবি জানাচ্ছি। ইতিমধ্যে আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে ‘২৪ জুলাই’ তারিখকে জাতীয় ক্রীড়া দিবস হিসেবে ঘোষণার জন্য সুপারিশ করেছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী শ্রী বীরেন শিকদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর আআমস আরেফিন সিদ্দিক, বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব সৈয়দ আবুল মকসুদ, স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের অধিনায়ক জাকারিয়া পিন্টু, সহ-অধিনায়ক প্রতাপ সংকর হাজরাসহ দেশের বিভিন্ন প্রথিতযশা ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব এই কার্যক্রমে সঙ্গে ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *